৩৫০ রুপির ওষুধে ব্ল্যাক ফাঙ্গাসের চিকিৎসা!

করোনা থেকে সুস্থ হওয়ার পর ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসায় ওষুধ খরচ ৩৫ হাজার থেকে মাত্র ৩৫০ রুপিতে নামিয়ে এনেছেন ভারতের এক নাক, কান ও গলার চিকিৎসক। মিউকোরমাইকোসিস সংক্রমণের বিরুদ্ধে প্রধান ওষুধ লিপোসোমাল অ্যাম্ফোটেরিসিন ইনজেকশনের দাম অনেক বেশি হলেও একই ওষুধের প্রচলিত ধরন ব্যবহারে খরচ ১০০ গুণ কম। তবে এটি খুব সতর্কতার সঙ্গে প্রয়োগ করতে হয়। প্রতিদিন রক্তের একটি পরীক্ষা করে দেখতে হয় কিডনিতে ওষুধের কোনও বিষক্রিয়া তৈরি হচ্ছে কিনা। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম টাইমস অব ইন্ডিয়া এখবর জানিয়েছ।

চিকিৎসকরা বলছেন, উভয় ধরনের অ্যাম্ফোটেরিসিনের কার্যকারিতা সমান। গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো, প্রচলিত ধরনের ওষুধটি উল্লেখযোগ্য কো-মরবিডিটিজ আছে এমন রোগীদের দেওয়া যাবে না। এসব দীর্ঘমেয়াদি রোগের মধ্যে রয়েছে রেনাল ফেইলার ও ডায়বেটিক কেটোসিডোসিস। বাকিদের ক্ষেত্রে প্রচলিত অ্যাম্ফোটেরিসিন কার্যকরভাবে মিউকোরমাইকোসিসের বিস্তার ঠেকাতে পারে। এক্ষেত্রে চিকিৎসায় নিয়োজিত চিকিৎসককে কঠোরভাবে রক্তের ক্রিয়েটাইনিনের মাত্রা পর্যালোচনা এবং অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে ক্ষতিগ্রস্ত টিস্যু পরিষ্কার করতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *