স্বামীকে হত্যার পর ৬ টুকরো করেন স্ত্রী

রাজধানীর মহাখালী থেকে উদ্ধার করা ৬ টুকরো মরদেহের রহস্য উদঘাটন করেছে মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ। পুলিশ জানায়, ওই ব্যক্তিকে কুপিয়ে হত্যা করেন তার প্রথম স্ত্রী ফাতেমা আক্তার

বর্তমানে ফাতেমা ডিবির হেফাজতে রয়েছেন।

 

সোমবার (৩১ মে) ডিবির গুলশান বিভাগের উপ-কমিশনার মশিউর বলেন, গ্রেফতার ফাতেমাই তার স্বামী ময়নাকে হত্যা করেন। এ বিষয়ে মঙ্গলবার (০১ জুন) ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে সংবাদ সম্মেলন করে বিস্তারিত জানানো হবে।

ডিবি সূত্র জানায়, সোমবার তাকে গ্রেফতারের পর জিজ্ঞাসাবাদ করে ডিবি। বনানীতে তার দেখানো জায়গায় গিয়ে মাথাটি উদ্ধার করা হয়। দীর্ঘদিন ধরে পারিবারিক কলহের জের ধরে ময়নাকে হত্যা করেন তিনি।

এর আগে, গত রোববার রাতে মহাখালীর আমতলি থেকে হাত-পা ও মস্তকবিহীন মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এর কয়েক ঘণ্টা পরে মহাখালী বাস টার্মিনাল থেকে কাটা হাত-পা এবং সোমবার দুপুরে বনানীর লেক থেকে বিছিন্ন মাথা উদ্ধার করা হয়। এরপর নিহতের আঙুলের ছাপ নিয়ে জানা যায় তার নাম ময়না মিয়া। তিনি অটোরিকশা চালক। বাড়ি কিশোরগঞ্জে। ফাতেমা ছাড়াও তার আরেকটি স্ত্রী রয়েছে। তিনি কিশোরগঞ্জে থাকেন

Leave a Reply

Your email address will not be published.