সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে লাঞ্ছনা ও আটকের প্রতিবাদে নোবিপ্রবিসাসের নিন্দা ও মুক্তির দাবি

প্রথম আলোর জৈষ্ঠ প্রতিবেদক রোজিনা ইসলামকে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে আটকে রেখে হেনস্থা এবং পুলিশে সোপর্দ করে মামলা করার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি (নোবিপ্রবিসাস)।
নোবিপ্রবি সাংবাদিক সমিতির সভাপতি আব্দুর রহীম ও সাধারণ সম্পাদক মাইনুদ্দিন পাঠান এক যৌথ বিবৃতিতে মন্ত্রণালয়ের এমন নিন্দনীয় কর্মকাণ্ডের প্রতিবাদ জানিয়ে সাংবাদিক রোজিনা ইসলামের মামলা প্রত্যাহার করে নিঃশর্ত মুক্তি এবং ঘটনায় জড়িতদের আইনের আওতায় এনে উপযুক্ত শাস্তি প্রদানের দাবী জানান।
জানা যায়, রোজিনা ইসলামকে পেশাগত দায়িত্ব পালনের সময় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিবের একান্ত সচিবের (পিএস) কক্ষে সাড়ে পাঁচ ঘণ্টা আটকে রেখে নির্যাতন করা হয় এবং পুলিশে সোপর্দ করে মামলা করা হয়।
নেতৃদ্বয় বলেন, বিশ্বজুড়েই সাংবাদিকরা সংবাদ সংগ্রহের জন্য বিভিন্ন পন্থা অবলম্বন করে থাকেন, আলোচিত এই নারী সাংবাদিকও তথ্য সংগ্রহন করতে যান স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে। সেখানে থাকা রাষ্ট্রীয় গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিবর্গ সাংবাদিককে তথ্য দিয়ে সহযোগিতা না করে উল্টো পেশাগত দায়িত্ব পালনে বাধা দেয় এবং মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা কর্তৃক লাঞ্ছিত করা, শারীরিক ভাবে নির্যাতন এবং পুলিশে সোপর্দ করে গ্রেফতার কোন ভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়।
নোবিপ্রবিসাস নেতৃবৃন্দ বলেন, এটি সাংবাদিকতা পেশার অপমান, মর্যাদাপূর্ণ মধ্যম আয়ের বাংলাদেশ স্বপ্নের অপমান, এটি সরকারি শুদ্ধাচার নীতিমালার অপমান। অবিলম্বে এই হেনস্তার অবসান চাই। মিডিয়ার বস্তুনিষ্ট সংবাদ প্রকাশের স্বাধীনতাটুকুও যদি আর না থাকে, তাহলে কোথায় যাবো আমরা? রোজিনা ইসলামের মুক্তি চাই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *